ঢাকা ০২:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বাধীনতা দিবসে নানা আয়োজন মির্জাপুরে; যথাযথ মর্যাদায় স্বাধীনতা দিবস পালিত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:২২:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ মার্চ ২০১৮ ১৭ বার পড়া হয়েছে

 

মির্জাপুর প্রতিনিধিঃ ৩১বার তোপধ্বনি, সূর্যোদয়ের সাথে সাথে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কুচকাওয়াজ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান এবং নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হচ্ছে মহান স্বাধীনতা দিবস। বাঙালি জাতির ইতিহাসে রক্তের আখরে লেখা গৌরবোজ্জ্বল একটি দিন আজ। সারা দেশের মতো টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে যথাযথ মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাদন করা হচ্ছে।

সকাল৫.৫৮মিনিটের সময় ৩১বার তোপধ্বনির মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের সূচনা করা হয়। ০৬.০১মিনিটে মির্জাপুর কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে মুক্তিযুদ্ধে বীর শহিদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন সর্বসাধারণ। সূর্যোদয়ের অব্যবহিত পর সকল সরকারি-বেসরকারি ভবন ও প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

এরপর সকাল ৭ঘটিকার সময় (শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম)/ মির্জাপুর এস কে পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্যারেড মঞ্চে কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে প্রদর্শন অনুষ্ঠান হয়। এতে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, আনসার ও ভিডিপি স্কাউট অংশ নেয়।
সকাল ০৮ঘটিকার সময় সমবেত কন্ঠে সারাদেশে একযোগে শুদ্ধসুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। প্যারেড মঞ্চে জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু। সেখানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মির্জা শামীমা আক্তার শিফা, ভাইস চেয়ারম্যান এস এম মোজাহিদুল ইসলাম মনির, অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মিজানুল হক প্রমুখ। জাতীয় সংগীত শেষে শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে দেন অতিথিবৃন্দ। তারপর শুরু হয় কুচকাওয়াজ প্রদর্শনী। পর্যায়ক্রমে ডিসপ্লে, ক্রীড়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। তারপর পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
দুপুর ১২টার দিকে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান হয়। বিকাল ৪টার সময় স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ফুটবল খেলা হয়। সন্ধ্যার সময় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

স্বাধীনতা দিবসে নানা আয়োজন মির্জাপুরে; যথাযথ মর্যাদায় স্বাধীনতা দিবস পালিত

আপডেট সময় : ০৫:২২:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ মার্চ ২০১৮

 

মির্জাপুর প্রতিনিধিঃ ৩১বার তোপধ্বনি, সূর্যোদয়ের সাথে সাথে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কুচকাওয়াজ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান এবং নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হচ্ছে মহান স্বাধীনতা দিবস। বাঙালি জাতির ইতিহাসে রক্তের আখরে লেখা গৌরবোজ্জ্বল একটি দিন আজ। সারা দেশের মতো টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে যথাযথ মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাদন করা হচ্ছে।

সকাল৫.৫৮মিনিটের সময় ৩১বার তোপধ্বনির মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের সূচনা করা হয়। ০৬.০১মিনিটে মির্জাপুর কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে মুক্তিযুদ্ধে বীর শহিদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন সর্বসাধারণ। সূর্যোদয়ের অব্যবহিত পর সকল সরকারি-বেসরকারি ভবন ও প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

এরপর সকাল ৭ঘটিকার সময় (শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম)/ মির্জাপুর এস কে পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্যারেড মঞ্চে কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে প্রদর্শন অনুষ্ঠান হয়। এতে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, আনসার ও ভিডিপি স্কাউট অংশ নেয়।
সকাল ০৮ঘটিকার সময় সমবেত কন্ঠে সারাদেশে একযোগে শুদ্ধসুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। প্যারেড মঞ্চে জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু। সেখানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মির্জা শামীমা আক্তার শিফা, ভাইস চেয়ারম্যান এস এম মোজাহিদুল ইসলাম মনির, অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মিজানুল হক প্রমুখ। জাতীয় সংগীত শেষে শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে দেন অতিথিবৃন্দ। তারপর শুরু হয় কুচকাওয়াজ প্রদর্শনী। পর্যায়ক্রমে ডিসপ্লে, ক্রীড়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। তারপর পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
দুপুর ১২টার দিকে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান হয়। বিকাল ৪টার সময় স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ফুটবল খেলা হয়। সন্ধ্যার সময় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।