ঢাকা ০২:০৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিলেটের ন্যায় রাজশাহীতেও বিএনপি ও জামায়াতের দ্বন্দ্ব চরমে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:১২:২৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮ ২৬ বার পড়া হয়েছে

২০ দলীয় জোটের শরিকদল জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মিত্র না হয়ে যেন পথের কাঁটায় রূপ নিয়েছে বিএনপির। সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত দ্বন্দ্ব এতটাই ভয়াবহ রূপ নিয়েছে যে, মহাজোটের মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী না ভেবে জামায়াত সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকেই প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে দেখছে বিএনপি। আওয়ামী লীগ নয়, সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জামায়াতকে হারানোই যেন বিএনপির মূল লক্ষ্যে পরিণত হয়েছে এখন। এমন ধারণাই পাওয়া যায় যখন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিএনপির সিলেট নগরীর এক গুরুত্বপূর্ণ নেতা জানান, উপর মহল থেকে নির্দেশ পাওয়া গেছে যে করেই হোক সিলেট নির্বাচনে যেন জামায়াতকে বেশি ভোট পেতে দেয়া না হয়।

সিলেট বিএনপি-জামায়াতের এ দ্বন্দ্ব রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনেও ছড়িয়ে পড়েছে। রাজশাহী নির্বাচনের শুরুর দিকে মেয়র পদে জামায়াত নিজেদের প্রার্থী ঘোষণা করলেও পরবর্তীতে জোটের স্বার্থে মেয়র পদ থেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেয়। কিন্তু নিজেদের প্রার্থীকে নির্বাচন করতে না দেয়ায় খুশি নয় জামায়াত। বিএনপির মেয়র প্রার্থী বুলবুলকে জোটের প্রার্থী হিসেবে স্বীকৃতি দিলেও সমর্থন প্রদানের ব্যাপারে দলটির পক্ষ থেকে কোনো উৎসাহ দেখা যাচ্ছেনা। নির্বাচনের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি থাকলেও এ পর্যন্ত জামায়াতের কোনো কর্মী সমর্থককে মেয়র প্রার্থী বুলবুলের সমর্থনে ভোট চাইতে দেখা যায়নি।

জানা যায়, জামায়াত সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীরা নিজেদের ব্যানারে প্রচারণায় অংশ নিলেও জোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থীর জন্যে জনগণের কাছে ভোট চাইছে না। এছাড়া গোপন সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, বিএনপি-জামায়াত দ্বন্দ্ব এতটাই সাপে নেউলে আকার ধারণ করেছে যে, জামায়াতের কর্মী সমর্থকরা বিএনপির মেয়র প্রার্থী বুলবুলকে ভোট দেয়া থেকে নিজেদের বিরত রাখার প্রতিজ্ঞা নিয়েছে। নাম প্রকাশ করার না শর্তে এক জামায়াত নেতা জানান যে, তার সকল কর্মীকে মেয়র পদে নৌকা মার্কায় ভোট প্রদানের জন্যে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। জোটের দ্বন্দ্ব তাই বিএনপির জন্য মাথা ব্যথার কারণ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সিলেটের ন্যায় রাজশাহীতেও বিএনপি ও জামায়াতের দ্বন্দ্ব চরমে

আপডেট সময় : ০৪:১২:২৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮

২০ দলীয় জোটের শরিকদল জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মিত্র না হয়ে যেন পথের কাঁটায় রূপ নিয়েছে বিএনপির। সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত দ্বন্দ্ব এতটাই ভয়াবহ রূপ নিয়েছে যে, মহাজোটের মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী না ভেবে জামায়াত সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকেই প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে দেখছে বিএনপি। আওয়ামী লীগ নয়, সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জামায়াতকে হারানোই যেন বিএনপির মূল লক্ষ্যে পরিণত হয়েছে এখন। এমন ধারণাই পাওয়া যায় যখন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিএনপির সিলেট নগরীর এক গুরুত্বপূর্ণ নেতা জানান, উপর মহল থেকে নির্দেশ পাওয়া গেছে যে করেই হোক সিলেট নির্বাচনে যেন জামায়াতকে বেশি ভোট পেতে দেয়া না হয়।

সিলেট বিএনপি-জামায়াতের এ দ্বন্দ্ব রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনেও ছড়িয়ে পড়েছে। রাজশাহী নির্বাচনের শুরুর দিকে মেয়র পদে জামায়াত নিজেদের প্রার্থী ঘোষণা করলেও পরবর্তীতে জোটের স্বার্থে মেয়র পদ থেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেয়। কিন্তু নিজেদের প্রার্থীকে নির্বাচন করতে না দেয়ায় খুশি নয় জামায়াত। বিএনপির মেয়র প্রার্থী বুলবুলকে জোটের প্রার্থী হিসেবে স্বীকৃতি দিলেও সমর্থন প্রদানের ব্যাপারে দলটির পক্ষ থেকে কোনো উৎসাহ দেখা যাচ্ছেনা। নির্বাচনের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি থাকলেও এ পর্যন্ত জামায়াতের কোনো কর্মী সমর্থককে মেয়র প্রার্থী বুলবুলের সমর্থনে ভোট চাইতে দেখা যায়নি।

জানা যায়, জামায়াত সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীরা নিজেদের ব্যানারে প্রচারণায় অংশ নিলেও জোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থীর জন্যে জনগণের কাছে ভোট চাইছে না। এছাড়া গোপন সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, বিএনপি-জামায়াত দ্বন্দ্ব এতটাই সাপে নেউলে আকার ধারণ করেছে যে, জামায়াতের কর্মী সমর্থকরা বিএনপির মেয়র প্রার্থী বুলবুলকে ভোট দেয়া থেকে নিজেদের বিরত রাখার প্রতিজ্ঞা নিয়েছে। নাম প্রকাশ করার না শর্তে এক জামায়াত নেতা জানান যে, তার সকল কর্মীকে মেয়র পদে নৌকা মার্কায় ভোট প্রদানের জন্যে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। জোটের দ্বন্দ্ব তাই বিএনপির জন্য মাথা ব্যথার কারণ।