ঢাকা ০১:৫৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সখিপুরে একসঙ্গে ৬ সন্তান জন্ম দিলেন মা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৪৫:০৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪ ৩৩ বার পড়া হয়েছে

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের সখীপুরে একই মায়ের গর্ভে ৬ সন্তানের জন্ম হয়েছে।৬টি সন্তানের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের কালমেঘা কড়ইচালা এক প্রবাসী স্ত্রীর গর্ভে ৬ সন্তান জন্ম নিয়েছে।জন্মের পরেই ৬ নবজাতকে মৃত্যু হয়েছে।

বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  সরকার নূরে আলম মুক্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রবাসী ফরহাদ মিয়ার মামা শাহজাহান মিয়া  জানান,আমার ভাগনের স্ত্রী সুমনা আক্তার (২৬) প্রায় ৫ মাস যাবৎ অন্তঃস্বত্তা। ঈদের দিন  হঠাৎ আনুমানিক সকাল  ১০টার দিকে প্রচন্ড পেটে ব্যথা অনুভব করলে দ্রুত সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। সুমনার অবস্থা অবনতি হলে, তাকে দ্রুত মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে হস্তান্তর  করা হয়। কুমুদিনী হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার পরীক্ষা শেষে সুমনার পেটে ৬টি বাচ্চার বিষয়টি নিশ্চিত হন। পরে নরমাল ডেলিভারিতে ৪টি মেয়ে ও ২টি ছেলে প্রসব করানো হয়।ঐ প্রবাসীর স্ত্রীর গর্ভে ৬সন্তান কেউই বেঁচে নেই। প্রবাসীর স্ত্রীর অবস্থা এখনো সংকটাপন্ন।

এ বিষয়ে বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সরকার নূরে আলম মুক্তা জানান, ৬ বাচ্চা জন্মের বিষয়টি শুনেছি।জন্মের পরে ৬টি বাচ্চার মৃত্যু হয়েছে। এমন ঘটনায় পরিবারের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সখিপুরে একসঙ্গে ৬ সন্তান জন্ম দিলেন মা

আপডেট সময় : ১২:৪৫:০৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের সখীপুরে একই মায়ের গর্ভে ৬ সন্তানের জন্ম হয়েছে।৬টি সন্তানের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের কালমেঘা কড়ইচালা এক প্রবাসী স্ত্রীর গর্ভে ৬ সন্তান জন্ম নিয়েছে।জন্মের পরেই ৬ নবজাতকে মৃত্যু হয়েছে।

বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  সরকার নূরে আলম মুক্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রবাসী ফরহাদ মিয়ার মামা শাহজাহান মিয়া  জানান,আমার ভাগনের স্ত্রী সুমনা আক্তার (২৬) প্রায় ৫ মাস যাবৎ অন্তঃস্বত্তা। ঈদের দিন  হঠাৎ আনুমানিক সকাল  ১০টার দিকে প্রচন্ড পেটে ব্যথা অনুভব করলে দ্রুত সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। সুমনার অবস্থা অবনতি হলে, তাকে দ্রুত মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে হস্তান্তর  করা হয়। কুমুদিনী হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার পরীক্ষা শেষে সুমনার পেটে ৬টি বাচ্চার বিষয়টি নিশ্চিত হন। পরে নরমাল ডেলিভারিতে ৪টি মেয়ে ও ২টি ছেলে প্রসব করানো হয়।ঐ প্রবাসীর স্ত্রীর গর্ভে ৬সন্তান কেউই বেঁচে নেই। প্রবাসীর স্ত্রীর অবস্থা এখনো সংকটাপন্ন।

এ বিষয়ে বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সরকার নূরে আলম মুক্তা জানান, ৬ বাচ্চা জন্মের বিষয়টি শুনেছি।জন্মের পরে ৬টি বাচ্চার মৃত্যু হয়েছে। এমন ঘটনায় পরিবারের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।