ঢাকা ১০:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেহেরপুরের গাংনীতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:০১:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১১ এপ্রিল ২০১৮ ২১ বার পড়া হয়েছে

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের গজাড়িয়া হেমায়েতপুর গ্রামে আমান উল্লাহর কলাবাগানে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি ডাকাত দলের সর্দার ছিলেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তির নাম জমসেদ আলী (৪৫)। তিনি উপজেলার কসবা পশ্চিমপাড়ার মৃত ওসমান আলীর ছেলে। আহত দুই পুলিশ কনস্টেবল হচ্ছেন খাইরুল ইসলাম ও আবদুর রাজ্জাক। পুলিশ জানিয়েছে, একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল ডাকাতি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে—এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযানে বের হয়। গজাড়িয়া হেমায়েতপুর গ্রামে রাস্তার পাশে আমান উল্লাহর কলাবাগানের কাছে পৌঁছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল কয়েকটি গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ডাকাত দলের সদস্যরা পিছু হঠে। পুলিশ পরে সেখানে জমসেদকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। গুরুতর আহত অবস্থায় জমসেদ ও আহত দুই পুলিশ কনস্টেবলকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে জমসেদকে মৃত ঘোষণা করেন আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) এম কে রেজা। পুলিশ বন্দুকযুদ্ধের স্থান থেকে চারটি হাতবোমা, দুটি দেশীয় ধারালো অস্ত্র ও একটি এলজি শাটারগান উদ্ধার করে। গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার বলেন, ডাকাতির প্রস্তুতি ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। নিহত জমসেদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওসি জানান, নিহত জমসেদ আলীর নামে গাংনী থানায় বেশ কয়েকটি ডাকাতির মামলা রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মেহেরপুরের গাংনীতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

আপডেট সময় : ০৯:০১:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১১ এপ্রিল ২০১৮

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের গজাড়িয়া হেমায়েতপুর গ্রামে আমান উল্লাহর কলাবাগানে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি ডাকাত দলের সর্দার ছিলেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তির নাম জমসেদ আলী (৪৫)। তিনি উপজেলার কসবা পশ্চিমপাড়ার মৃত ওসমান আলীর ছেলে। আহত দুই পুলিশ কনস্টেবল হচ্ছেন খাইরুল ইসলাম ও আবদুর রাজ্জাক। পুলিশ জানিয়েছে, একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল ডাকাতি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে—এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযানে বের হয়। গজাড়িয়া হেমায়েতপুর গ্রামে রাস্তার পাশে আমান উল্লাহর কলাবাগানের কাছে পৌঁছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল কয়েকটি গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ডাকাত দলের সদস্যরা পিছু হঠে। পুলিশ পরে সেখানে জমসেদকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। গুরুতর আহত অবস্থায় জমসেদ ও আহত দুই পুলিশ কনস্টেবলকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে জমসেদকে মৃত ঘোষণা করেন আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) এম কে রেজা। পুলিশ বন্দুকযুদ্ধের স্থান থেকে চারটি হাতবোমা, দুটি দেশীয় ধারালো অস্ত্র ও একটি এলজি শাটারগান উদ্ধার করে। গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার বলেন, ডাকাতির প্রস্তুতি ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। নিহত জমসেদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওসি জানান, নিহত জমসেদ আলীর নামে গাংনী থানায় বেশ কয়েকটি ডাকাতির মামলা রয়েছে।