ঢাকা ০৮:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ০৬ জুলাই ২০২৪, ২২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মির্জাপুরে অতিরিক্ত ওজনের প্যাকেটে মিষ্টি বিক্রির অপরাধে দুই ব্যবসায়ীর জরিমানা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:০৪:০৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪ ২৩ বার পড়া হয়েছে

সোনালী বাংলদেশ নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে অতিরিক্ত ওজনের প্যাকেটে মিষ্টি বিক্রির অপরাধে দুই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে জরিমানা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক।

বুধবার রাতে নয়টার দিকে উপজেলার পাকুল্যা বাজারে এ অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম। জানা গেছে, বিশেষ কায়দায় অতিরিক্ত ওজনের মিষ্টির প্যাকেট তৈরি করে তাতে মিষ্টি বিক্রি করে প্রতারনা করে আসছে পাকুল্যা বাজারের লক্ষী নারায়ন মিষ্টান্ন ভান্ডারের মালিক বংশী পাল ও আদি টাঙ্গাইল সুইটস্ গ্যালারি মালিক বিদ্যুৎ পাল। এমন অভিযোগে বুধবার রাত নয়টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম ওই দুই মিষ্টির দোকানে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় তিনি অতিরিক্ত ওজনে তৈরি প্যাকেটে মিষ্টি বিক্রির সত্যতা পান। এক কেজি ওজনের খালি মিষ্টির প্যাকেটের ওজন আড়াইশ গ্রাম প্রমাণিত হয়। ওজনে সাড়ে সাতশ গ্রাম মিষ্টি দিয়ে প্যাকেটের ওজনসহ এক কেজি মিষ্টির দাম ৪শ টাকা রাখা হচ্ছে। এতে গ্রাহকের কাছ থেকে খালি মিষ্টির প্যাকেটের দাম রাখা হচ্ছে একশ টাকা। হাতে নাতে প্রতারনার বিষয়টির সত্যতা পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম লক্ষী নারায়ন মিষ্টান্ন ভান্ডারের মালিক বংশী পালের কাছ থেকে ১০ হাজার ও আদি টাঙ্গাইল সুইটস্ গ্যালারি মালিক বিদ্যুৎ পালের কাছ থেকে ১১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। জনস্বার্থে এ ধরণের অভিযান অব্যহত থাকবে বলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মির্জাপুরে অতিরিক্ত ওজনের প্যাকেটে মিষ্টি বিক্রির অপরাধে দুই ব্যবসায়ীর জরিমানা

আপডেট সময় : ০১:০৪:০৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪

সোনালী বাংলদেশ নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে অতিরিক্ত ওজনের প্যাকেটে মিষ্টি বিক্রির অপরাধে দুই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে জরিমানা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক।

বুধবার রাতে নয়টার দিকে উপজেলার পাকুল্যা বাজারে এ অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম। জানা গেছে, বিশেষ কায়দায় অতিরিক্ত ওজনের মিষ্টির প্যাকেট তৈরি করে তাতে মিষ্টি বিক্রি করে প্রতারনা করে আসছে পাকুল্যা বাজারের লক্ষী নারায়ন মিষ্টান্ন ভান্ডারের মালিক বংশী পাল ও আদি টাঙ্গাইল সুইটস্ গ্যালারি মালিক বিদ্যুৎ পাল। এমন অভিযোগে বুধবার রাত নয়টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম ওই দুই মিষ্টির দোকানে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় তিনি অতিরিক্ত ওজনে তৈরি প্যাকেটে মিষ্টি বিক্রির সত্যতা পান। এক কেজি ওজনের খালি মিষ্টির প্যাকেটের ওজন আড়াইশ গ্রাম প্রমাণিত হয়। ওজনে সাড়ে সাতশ গ্রাম মিষ্টি দিয়ে প্যাকেটের ওজনসহ এক কেজি মিষ্টির দাম ৪শ টাকা রাখা হচ্ছে। এতে গ্রাহকের কাছ থেকে খালি মিষ্টির প্যাকেটের দাম রাখা হচ্ছে একশ টাকা। হাতে নাতে প্রতারনার বিষয়টির সত্যতা পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম লক্ষী নারায়ন মিষ্টান্ন ভান্ডারের মালিক বংশী পালের কাছ থেকে ১০ হাজার ও আদি টাঙ্গাইল সুইটস্ গ্যালারি মালিক বিদ্যুৎ পালের কাছ থেকে ১১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। জনস্বার্থে এ ধরণের অভিযান অব্যহত থাকবে বলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ নুরুল আলম জানিয়েছেন।