ঢাকা ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মির্জাপুরের টাকার দ্রুত সমাধানের দাবিতে এনজিও কর্মকর্তার বাড়িতে গ্রাহকরা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৮:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ মে ২০২৪ ১৯ বার পড়া হয়েছে

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক :- টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের সময়ের কথা নামে একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তারা গ্রাহকের কয়েক কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে। এই ঘটনার দ্রæত সমাধানের আশায় সংস্থার নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমের বাড়িতে অবস্থান নেয় ভুক্তভোগীরা।
জানা গেছে, সময়ের কথা এনজিওর পরিচালক পিন্টু দে এবং শাখা ব্যবস্থাপক সুধীর ঘোষ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে মির্জাপুর, সরিষাদাইড়, বুড়িহাটী, পাহাড়পুরসহ বিভিন্ন গ্রামের মানুষের নিকট থেকে কয়েক কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করেন। সম্প্রতি গ্রাহকরা জানতে পারেন সুধীর ঘোষ এবং পিন্টু দে গ্রাাহকের টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছেন। তারা ১৫ এপ্রিল মির্জাপুর সাহাপাড়া এলাকায় সময়ের কথা এনজিও অফিসে গিয়ে সুধীর ও পিন্টু দেকে অফিসে দেখতে না পেয়ে তারা পরিচালক পিন্টু দের বাড়িতে গেলে তাঁর স্ত্রী কলি সাহা অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন এবং ভয়ভীতি দেখান। পরে সুধীরের বাড়িতে অনশন করে গ্রাহকরা। এ বিষয়ে নিরুপায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ নূরুল আলম এবং মির্জাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দেন গ্রাাহকের পক্ষে নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম।
বুড়িহাটী গ্রামের গোলাপী বেগম, শামসুন্নাহার, মমতাজ বেগম, নিলুফা আক্তার ও জুলেখা বেগম জানান, নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমকে বলেন, পলাতক সুধীর ঘোষ ও পিন্টু দেকে যেকোন ভাবে উপস্থিত করে আমাদের টাকা ফেরত দেন।
সময়ের কথা এনজিওর নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গ্রাহকের টাকা নিয়ে উধাও হওয়া সুধীর ঘোষ ও পিন্টু দেও বিরোদ্ধে মির্জাপুর থানা ও উপজেলা নির্বাহী বরাবর অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। তাদেরকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। তাদের খুঁজে পেলে গ্রাাহকের টাকা ফেরতের বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মির্জাপুরের টাকার দ্রুত সমাধানের দাবিতে এনজিও কর্মকর্তার বাড়িতে গ্রাহকরা

আপডেট সময় : ০৬:৪৮:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ মে ২০২৪

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক :- টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের সময়ের কথা নামে একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তারা গ্রাহকের কয়েক কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে। এই ঘটনার দ্রæত সমাধানের আশায় সংস্থার নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমের বাড়িতে অবস্থান নেয় ভুক্তভোগীরা।
জানা গেছে, সময়ের কথা এনজিওর পরিচালক পিন্টু দে এবং শাখা ব্যবস্থাপক সুধীর ঘোষ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে মির্জাপুর, সরিষাদাইড়, বুড়িহাটী, পাহাড়পুরসহ বিভিন্ন গ্রামের মানুষের নিকট থেকে কয়েক কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করেন। সম্প্রতি গ্রাহকরা জানতে পারেন সুধীর ঘোষ এবং পিন্টু দে গ্রাাহকের টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছেন। তারা ১৫ এপ্রিল মির্জাপুর সাহাপাড়া এলাকায় সময়ের কথা এনজিও অফিসে গিয়ে সুধীর ও পিন্টু দেকে অফিসে দেখতে না পেয়ে তারা পরিচালক পিন্টু দের বাড়িতে গেলে তাঁর স্ত্রী কলি সাহা অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন এবং ভয়ভীতি দেখান। পরে সুধীরের বাড়িতে অনশন করে গ্রাহকরা। এ বিষয়ে নিরুপায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ নূরুল আলম এবং মির্জাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দেন গ্রাাহকের পক্ষে নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম।
বুড়িহাটী গ্রামের গোলাপী বেগম, শামসুন্নাহার, মমতাজ বেগম, নিলুফা আক্তার ও জুলেখা বেগম জানান, নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমকে বলেন, পলাতক সুধীর ঘোষ ও পিন্টু দেকে যেকোন ভাবে উপস্থিত করে আমাদের টাকা ফেরত দেন।
সময়ের কথা এনজিওর নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গ্রাহকের টাকা নিয়ে উধাও হওয়া সুধীর ঘোষ ও পিন্টু দেও বিরোদ্ধে মির্জাপুর থানা ও উপজেলা নির্বাহী বরাবর অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। তাদেরকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। তাদের খুঁজে পেলে গ্রাাহকের টাকা ফেরতের বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।