ঢাকা ০৬:৫২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভূঞাপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় ব‌্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ঘরবা‌ড়ি‌ ভাঙচু‌রের অ‌ভি‌যোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:১২:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪ ১২ বার পড়া হয়েছে
সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে উপজেলা প‌রিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা দোকানপাট, বাড়িঘর ও নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করার ঘটনা ঘ‌টে‌ছে। এই ঘটনায় ৩জন আহত হ‌য়েছে।
শনিবার (১৮ মে) রাত ১ টা ৩০ মিনিটে  উপজেলার ফলদা ইউনিয়নের তাড়াই, ধুবলিয়া গ্রামে ও পাছতেরিল্লা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, রাতে ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী টিউবওয়েল মার্কার সমর্থকরা মোটরসাইকেলযোগে পাছতেরিল্লা এলাকায় যাওয়ার সময় তাড়াই এলাকায় তালা মার্কার সমর্থকদের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়ি‌য়ে প‌ড়ে। এরপর ফেরার প‌থে আবারও বাকবিতন্ডার একপর্যা‌য়ে দুইপ‌ক্ষের পাল্টাপা‌ল্টি হামলা হয়। প‌রে অ‌তি‌রিক্ত পু‌লিশ গি‌য়ে প‌রি‌স্থি‌তি নিয়ন্ত্রণে আনে। প‌রে তালা মার্কার সমর্থকরা এক‌ত্রিত হ‌য়ে ধুবলিয়া গ্রাগ্রামের কানছু সেকের ছেলে ও হেলিকপ্টারের সমর্থক রেজাউল, একই গ্রামের মেহের আলীর ছেলে রনি মিয়া ও আনোয়ার হোসেনের বসত বা‌ড়ি ও ব‌্যবসা প্রতিষ্ঠা‌নে হামলা ক‌রে। হামলায় তিনজন আহত হয়। এছাড়াও কোমলমতি শিশুরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে।
স্থানীয়রা জানান, উপ‌জেলা প‌রিষ‌দ নির্বাচ‌নকে কেন্দ্র ক‌রে ধুবলিয়া গ্রামের রেজাউল, জয়নাল রনির বাড়িঘর ভাঙচুর ক‌রে। এছাড়া রনির কম্পিউটারের দোকান ও পাঁছতেরিল্লার সোহেল তালুকদারের ঔষধের দোকান ভাঙচুর করে। এরআগে রাত ১২টার দিকে এক‌টি মিছিল বের হয়। এসময় ওই মি‌ছিলকারী‌দের হা‌তে দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোটা ছিল। মি‌ছি‌লে থাকা লোকজন বা‌ড়ি ঘর ভাঙচুর ক‌রে এবং প্রাণনা‌শের হু‌মকি দেয়।
স্থানীয়রা জানায়, শনিবার রাতে ইউপি সদস্য হারুণ-অর-রশীদের নেতৃত্বে শতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে দোকান ও বসত বাড়িতে হামলা চালায়। বিকট শব্দে আমরা ঘুম থেকে উঠে এগিয়ে আসলে তারা চলে যায়। এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনায় বাড়িতে থাকা শিশুরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। এ ঘটনার নিন্দা জানান তারা।
ভুঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ও‌সি) আহসান উল্ল‌্যাহ জানান, ঘটনাস্থ‌লে পু‌লিশ পাঠা‌নো হ‌য়ে‌ছে। তদন্ত শে‌ষে আইনগত ব‌্যবস্থা গ্রহণ করা হ‌বে।
উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকা‌রি রিটা‌র্নিং কর্মকর্তা মামুনুর রশীদ জানান, নির্বাচনী স‌হিংসতার বিষয়‌টি ‌জে‌নে‌ছি। আইনগত ব‌্যবস্থা গ্রহণ করা হ‌বে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ভূঞাপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় ব‌্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ঘরবা‌ড়ি‌ ভাঙচু‌রের অ‌ভি‌যোগ

আপডেট সময় : ০৬:১২:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪
সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে উপজেলা প‌রিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা দোকানপাট, বাড়িঘর ও নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করার ঘটনা ঘ‌টে‌ছে। এই ঘটনায় ৩জন আহত হ‌য়েছে।
শনিবার (১৮ মে) রাত ১ টা ৩০ মিনিটে  উপজেলার ফলদা ইউনিয়নের তাড়াই, ধুবলিয়া গ্রামে ও পাছতেরিল্লা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, রাতে ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী টিউবওয়েল মার্কার সমর্থকরা মোটরসাইকেলযোগে পাছতেরিল্লা এলাকায় যাওয়ার সময় তাড়াই এলাকায় তালা মার্কার সমর্থকদের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়ি‌য়ে প‌ড়ে। এরপর ফেরার প‌থে আবারও বাকবিতন্ডার একপর্যা‌য়ে দুইপ‌ক্ষের পাল্টাপা‌ল্টি হামলা হয়। প‌রে অ‌তি‌রিক্ত পু‌লিশ গি‌য়ে প‌রি‌স্থি‌তি নিয়ন্ত্রণে আনে। প‌রে তালা মার্কার সমর্থকরা এক‌ত্রিত হ‌য়ে ধুবলিয়া গ্রাগ্রামের কানছু সেকের ছেলে ও হেলিকপ্টারের সমর্থক রেজাউল, একই গ্রামের মেহের আলীর ছেলে রনি মিয়া ও আনোয়ার হোসেনের বসত বা‌ড়ি ও ব‌্যবসা প্রতিষ্ঠা‌নে হামলা ক‌রে। হামলায় তিনজন আহত হয়। এছাড়াও কোমলমতি শিশুরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে।
স্থানীয়রা জানান, উপ‌জেলা প‌রিষ‌দ নির্বাচ‌নকে কেন্দ্র ক‌রে ধুবলিয়া গ্রামের রেজাউল, জয়নাল রনির বাড়িঘর ভাঙচুর ক‌রে। এছাড়া রনির কম্পিউটারের দোকান ও পাঁছতেরিল্লার সোহেল তালুকদারের ঔষধের দোকান ভাঙচুর করে। এরআগে রাত ১২টার দিকে এক‌টি মিছিল বের হয়। এসময় ওই মি‌ছিলকারী‌দের হা‌তে দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোটা ছিল। মি‌ছি‌লে থাকা লোকজন বা‌ড়ি ঘর ভাঙচুর ক‌রে এবং প্রাণনা‌শের হু‌মকি দেয়।
স্থানীয়রা জানায়, শনিবার রাতে ইউপি সদস্য হারুণ-অর-রশীদের নেতৃত্বে শতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে দোকান ও বসত বাড়িতে হামলা চালায়। বিকট শব্দে আমরা ঘুম থেকে উঠে এগিয়ে আসলে তারা চলে যায়। এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনায় বাড়িতে থাকা শিশুরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। এ ঘটনার নিন্দা জানান তারা।
ভুঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ও‌সি) আহসান উল্ল‌্যাহ জানান, ঘটনাস্থ‌লে পু‌লিশ পাঠা‌নো হ‌য়ে‌ছে। তদন্ত শে‌ষে আইনগত ব‌্যবস্থা গ্রহণ করা হ‌বে।
উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকা‌রি রিটা‌র্নিং কর্মকর্তা মামুনুর রশীদ জানান, নির্বাচনী স‌হিংসতার বিষয়‌টি ‌জে‌নে‌ছি। আইনগত ব‌্যবস্থা গ্রহণ করা হ‌বে।