ঢাকা ০৭:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৭ জুলাই ২০২৪, ২৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইলে এসএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য সাত শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার চেষ্টা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৩:২৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৭ মে ২০১৮ ২০ বার পড়া হয়েছে

টাঙ্গাইলে এসএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট খারাপ হওয়ায় কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে সাতজন শিক্ষার্থী। শনিবার দুপুরে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর টাঙ্গাইল সদর, বাসাইল ও ভূঞাপুর উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। পরে আহত শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহতরা হলো টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার পৌলি গ্রামের নাসিরের ছেলে নাহিদ, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঢালান শিবপুর এলাকার মো. খোরশেদ মিয়ার মেয়ে মিনা আক্তার, ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইলের হামিদুর রহমানের মেয়ে নিরা, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ছিটকীবাড়ী এলাকার হাসমত আলীর মেয়ে হালিমা, বাসাইল উপজেলার কাউলজানী ইউনিয়নের আতাহার আলীর মেয়ে বর্ণা আক্তার, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পোড়াবাড়ী ইউনিয়নের আজাহার ইসলামের মেয়ে অন্তরা ও টাঙ্গাইল পৌর এলাকার আলোয়া ভবানীর হযরত আলীর মেয়ে রাখি।

আহতদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আজ পরীক্ষার রেজাল্ট বের হবে সবাই অনেক খুশি ছিলো। কিন্তু রেজাল্ট ভালো না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। আর অনেকটা অভিমান করেই তারা কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে আমরা তাদের তাড়াতাড়ি হাসপাতালে ভর্তি করি। বর্তমানে তারা সুস্থ্য আছে।

টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, এসএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট বের হওয়ার পর থেকেই একে একে সাতজন শিক্ষার্থী আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়। এরমধ্যে একজন ছেলে আর বাকি সবাই মেয়ে। তারা সকলেই কীটনাশক খেয়েছিলো। বর্তমানে সবাই শঙ্কা মুক্ত।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

টাঙ্গাইলে এসএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য সাত শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার চেষ্টা

আপডেট সময় : ০৯:৫৩:২৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৭ মে ২০১৮

টাঙ্গাইলে এসএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট খারাপ হওয়ায় কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে সাতজন শিক্ষার্থী। শনিবার দুপুরে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর টাঙ্গাইল সদর, বাসাইল ও ভূঞাপুর উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। পরে আহত শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহতরা হলো টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার পৌলি গ্রামের নাসিরের ছেলে নাহিদ, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঢালান শিবপুর এলাকার মো. খোরশেদ মিয়ার মেয়ে মিনা আক্তার, ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইলের হামিদুর রহমানের মেয়ে নিরা, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ছিটকীবাড়ী এলাকার হাসমত আলীর মেয়ে হালিমা, বাসাইল উপজেলার কাউলজানী ইউনিয়নের আতাহার আলীর মেয়ে বর্ণা আক্তার, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পোড়াবাড়ী ইউনিয়নের আজাহার ইসলামের মেয়ে অন্তরা ও টাঙ্গাইল পৌর এলাকার আলোয়া ভবানীর হযরত আলীর মেয়ে রাখি।

আহতদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আজ পরীক্ষার রেজাল্ট বের হবে সবাই অনেক খুশি ছিলো। কিন্তু রেজাল্ট ভালো না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। আর অনেকটা অভিমান করেই তারা কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে আমরা তাদের তাড়াতাড়ি হাসপাতালে ভর্তি করি। বর্তমানে তারা সুস্থ্য আছে।

টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, এসএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট বের হওয়ার পর থেকেই একে একে সাতজন শিক্ষার্থী আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়। এরমধ্যে একজন ছেলে আর বাকি সবাই মেয়ে। তারা সকলেই কীটনাশক খেয়েছিলো। বর্তমানে সবাই শঙ্কা মুক্ত।