ঢাকা ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে পূর্বশত্রুতায় পুকুরে বিষ দিয়ে পনের লক্ষ টাকার মাছ নিধন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:২১:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ এপ্রিল ২০১৮ ১১ বার পড়া হয়েছে

রবিবার (৮ এপ্রিল) টাঙ্গাইলের গোপালপুরে শত্রুতার জেরে উপজেলার হাদিরা ইউনিয়নের গোহাত্রা গ্রামের মৎস চাষী মো. রেজাউল করিমের পুকুরে বিষ প্রয়োগের মাধ্যমে প্রায় পনের লক্ষ টাকার মাছ নিধনের অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে।

রাত অনুমানিক একটার দিকে পুকুরের পাহারাদার মো. সামাল মিয়া (৬০) প্রাকৃতিক ডাকে পুকুর পাড়ের পাহারা দেয়ার ঘর থেকে বাহিরে বেড়িয়ে আসলে পুকুরে থাকা মাছের অস্বাভাবিক আচরণ দেখতে পায়। পরে পুকুরের মালিক রেজাউল করিমকে খবর দিলে তিনি পুকুরে চাষ করা প্রায় আট হাজার পাঙ্গাস, পাঁচ হাজার শিং ও বিভিন্ন দেশী প্রজাতির মাছ মরে গিয়ে ভেসে উঠতে দেখে। সরজমিনে জানা যায়, মৎস চাষী মো. রেজাউল করিম নিজ বসত বাড়ির আঙ্গিনার ষাট শতাংশ জমির পুকুরে বাণিজ্যিক ভাবে পাঙ্গাস ও শিং মাছসহ বিভিন্ন দেশী প্রজাতির মাছ চাষ করে আসছেন।

তিনি জানান, নিধন করা মাছের আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় পনের লক্ষ টাকা।

খবর পেয়ে মৎস অফিসের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। মৃত ও পঁচে যাওয়া মাছ এবং পুকুরের পানি পরীক্ষানিরীক্ষা করে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হন বিষ প্রয়োগের কারণে এ মাছ নিধন হয়েছে।

পুকুরের মালিক মৎস চাষী মো. রেজাউল করিম এ ব্যাপারে গোপালপুর থানায় অজ্ঞাতনাম বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মাছ নিধনের অভিযোগে একটি অভিযোগপত্র দাখিল করলে গোপালপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে রওনা হোন।

এ ব্যাপারে গোপালপুর থানার এসআই মো. ইয়াসিন আরাফাত জানান, অভিযোগপত্রের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও প্রাথমিক তদন্ত শেষ করে মামলা গ্রহন করা হবে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে পূর্বশত্রুতায় পুকুরে বিষ দিয়ে পনের লক্ষ টাকার মাছ নিধন

আপডেট সময় : ১২:২১:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ এপ্রিল ২০১৮

রবিবার (৮ এপ্রিল) টাঙ্গাইলের গোপালপুরে শত্রুতার জেরে উপজেলার হাদিরা ইউনিয়নের গোহাত্রা গ্রামের মৎস চাষী মো. রেজাউল করিমের পুকুরে বিষ প্রয়োগের মাধ্যমে প্রায় পনের লক্ষ টাকার মাছ নিধনের অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে।

রাত অনুমানিক একটার দিকে পুকুরের পাহারাদার মো. সামাল মিয়া (৬০) প্রাকৃতিক ডাকে পুকুর পাড়ের পাহারা দেয়ার ঘর থেকে বাহিরে বেড়িয়ে আসলে পুকুরে থাকা মাছের অস্বাভাবিক আচরণ দেখতে পায়। পরে পুকুরের মালিক রেজাউল করিমকে খবর দিলে তিনি পুকুরে চাষ করা প্রায় আট হাজার পাঙ্গাস, পাঁচ হাজার শিং ও বিভিন্ন দেশী প্রজাতির মাছ মরে গিয়ে ভেসে উঠতে দেখে। সরজমিনে জানা যায়, মৎস চাষী মো. রেজাউল করিম নিজ বসত বাড়ির আঙ্গিনার ষাট শতাংশ জমির পুকুরে বাণিজ্যিক ভাবে পাঙ্গাস ও শিং মাছসহ বিভিন্ন দেশী প্রজাতির মাছ চাষ করে আসছেন।

তিনি জানান, নিধন করা মাছের আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় পনের লক্ষ টাকা।

খবর পেয়ে মৎস অফিসের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। মৃত ও পঁচে যাওয়া মাছ এবং পুকুরের পানি পরীক্ষানিরীক্ষা করে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হন বিষ প্রয়োগের কারণে এ মাছ নিধন হয়েছে।

পুকুরের মালিক মৎস চাষী মো. রেজাউল করিম এ ব্যাপারে গোপালপুর থানায় অজ্ঞাতনাম বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মাছ নিধনের অভিযোগে একটি অভিযোগপত্র দাখিল করলে গোপালপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে রওনা হোন।

এ ব্যাপারে গোপালপুর থানার এসআই মো. ইয়াসিন আরাফাত জানান, অভিযোগপত্রের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও প্রাথমিক তদন্ত শেষ করে মামলা গ্রহন করা হবে।