ঢাকা ০১:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবীতে মাভাবিপ্রবিতে ঝাড়ুদান কর্মসূচি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:২৮:২৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ মার্চ ২০১৮ ২০ বার পড়া হয়েছে

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের ৫ দফা দাবীতে গলায় সনদ ঝুলিয়ে ঝাড়ুদান কর্মসূচি পালন করেছে সাধারন শিক্ষার্থীরা।

রবিবার সকাল ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে থেকে একটি মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ফটক, দ্বিতীয় ফটক ও বিভিন্ন স্থানে গলায় সনদ ঝুলিয়ে ঝাড়ু হাতে ঝাড়ুদান কর্মসূচি পালন করে।

ঝাড়ুদান শেষে তারা শহীদ মিনারের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সভার আয়োজন করে। বঙ্গবন্ধুর বাংলায়, বৈষম্যের ঠাই নাই, স্লোগানকে সামনে রেখে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। কোটা ব্যবস্থার সংস্কার করে ৫৬% থেকে ১০% এ নিয়ে আসা, কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্য পদগুলোতে মেধায় নিয়োগ দেয়া, চাকরি পরীক্ষায় কোটা পদ্ধতি একাধিকবার ব্যবহার না করা, কোটায় বিশেষ ধরনের কোন পরীক্ষা না পাওয়া এবং চাকরির ক্ষেত্রে সবার জন্য অভিন্ন কাটমার্কস ও বয়সসীমা নির্ধারন করা এই ৫ দাবীতে কর্মসূচি পালন করে সাধারন শিক্ষার্থীরা।

এছাড়া মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান রেখে নাতি-নাতনী কোটা প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা। এসময় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের রাসেল কবির ও আব্দুল বাছেদ, ক্রিমিনোলজি এন্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগের মিজানুর রহমান, ফুড টেকনোলজি এন্ড নিউট্রিশনাল সায়েন্স বিভাগের নাজমুল হাসান ও আরিফুল ইসলামসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবীতে মাভাবিপ্রবিতে ঝাড়ুদান কর্মসূচি

আপডেট সময় : ১০:২৮:২৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ মার্চ ২০১৮

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের ৫ দফা দাবীতে গলায় সনদ ঝুলিয়ে ঝাড়ুদান কর্মসূচি পালন করেছে সাধারন শিক্ষার্থীরা।

রবিবার সকাল ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে থেকে একটি মিছিল বের করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ফটক, দ্বিতীয় ফটক ও বিভিন্ন স্থানে গলায় সনদ ঝুলিয়ে ঝাড়ু হাতে ঝাড়ুদান কর্মসূচি পালন করে।

ঝাড়ুদান শেষে তারা শহীদ মিনারের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সভার আয়োজন করে। বঙ্গবন্ধুর বাংলায়, বৈষম্যের ঠাই নাই, স্লোগানকে সামনে রেখে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। কোটা ব্যবস্থার সংস্কার করে ৫৬% থেকে ১০% এ নিয়ে আসা, কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শূন্য পদগুলোতে মেধায় নিয়োগ দেয়া, চাকরি পরীক্ষায় কোটা পদ্ধতি একাধিকবার ব্যবহার না করা, কোটায় বিশেষ ধরনের কোন পরীক্ষা না পাওয়া এবং চাকরির ক্ষেত্রে সবার জন্য অভিন্ন কাটমার্কস ও বয়সসীমা নির্ধারন করা এই ৫ দাবীতে কর্মসূচি পালন করে সাধারন শিক্ষার্থীরা।

এছাড়া মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান রেখে নাতি-নাতনী কোটা প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা। এসময় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের রাসেল কবির ও আব্দুল বাছেদ, ক্রিমিনোলজি এন্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগের মিজানুর রহমান, ফুড টেকনোলজি এন্ড নিউট্রিশনাল সায়েন্স বিভাগের নাজমুল হাসান ও আরিফুল ইসলামসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।