ঢাকা ০২:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কাজ-কর্ম স্থবির!চেয়ারম্যান পালাতক

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:০৫:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ মার্চ ২০১৮ ২০ বার পড়া হয়েছে

ঝিনাইদহ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল আলীম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহুরা খাতুন মামলার আাসামী হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। উপজেলা পরিষদ ফাঁকা যাচ্ছে। সাধারন মানুষ কাজ কর্ম করতে এসে ফিরে যাচ্ছেন উপজেলা পরিষদ থেকে। একদিকে যেমন কাজ কর্ম বাধাগ্রস্ত হচ্ছে ঠিক তেমনি অপরদিকে বদলি হতে পারছেন না প্রাথমিকের সহকারী ও প্রধান শিক্ষেকেরা।

ফ্রেব্রুয়ারি’১৮ থেকে আজ পর্যন্ত এমন সমস্যায় পড়েছেন সদর উপজেলার সাধারন মানুষ। তবে উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা বলছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দিয়ে কাজ চালিয়ে নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিষয়টি অস্বীকার করছেন।

চেয়ারম্যান না থাকায় কয়েকদিন ধরে একদিকে সময় নষ্ট হচ্ছে। অপরদিকে কাজ হচ্ছেনা।
সদর উপজেলার কয়েকজন অভিযোগ করেন, প্রায় প্রতিদিন এইভাবে দুরদুরান্ত থেকে এসে ফিরে যাওযা সম্ভব নয়। আমরা চাষ করে খাই। এভাবে ফিরে গেলে আশা যাওয়া বাবদ টাকা নষ্ট হচ্ছে। অপরদিকে সময় নষ্ট হচ্ছে। ফলে কোন লাভ হচ্ছে না। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম জানান, সমস্ত কাজ হচ্ছে। কাজ বন্ধ নেই। বাধা গ্রস্ত হচ্ছেনা। মহিলা ভাইস চেযারম্যানের দিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহুরা খাতুন বলেন, মামলার কারনে উপজেলায় যেতে পারছি না। আবার গোপনেও কোন ফাইলে স্বাক্ষর করছিনা। খুব দ্রুতই জামিন নিয়ে অফিস শুরু করব।

উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল আলীমের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার বর্তমান মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কাজ-কর্ম স্থবির!চেয়ারম্যান পালাতক

আপডেট সময় : ১২:০৫:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ মার্চ ২০১৮

ঝিনাইদহ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল আলীম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহুরা খাতুন মামলার আাসামী হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। উপজেলা পরিষদ ফাঁকা যাচ্ছে। সাধারন মানুষ কাজ কর্ম করতে এসে ফিরে যাচ্ছেন উপজেলা পরিষদ থেকে। একদিকে যেমন কাজ কর্ম বাধাগ্রস্ত হচ্ছে ঠিক তেমনি অপরদিকে বদলি হতে পারছেন না প্রাথমিকের সহকারী ও প্রধান শিক্ষেকেরা।

ফ্রেব্রুয়ারি’১৮ থেকে আজ পর্যন্ত এমন সমস্যায় পড়েছেন সদর উপজেলার সাধারন মানুষ। তবে উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা বলছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দিয়ে কাজ চালিয়ে নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিষয়টি অস্বীকার করছেন।

চেয়ারম্যান না থাকায় কয়েকদিন ধরে একদিকে সময় নষ্ট হচ্ছে। অপরদিকে কাজ হচ্ছেনা।
সদর উপজেলার কয়েকজন অভিযোগ করেন, প্রায় প্রতিদিন এইভাবে দুরদুরান্ত থেকে এসে ফিরে যাওযা সম্ভব নয়। আমরা চাষ করে খাই। এভাবে ফিরে গেলে আশা যাওয়া বাবদ টাকা নষ্ট হচ্ছে। অপরদিকে সময় নষ্ট হচ্ছে। ফলে কোন লাভ হচ্ছে না। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম জানান, সমস্ত কাজ হচ্ছে। কাজ বন্ধ নেই। বাধা গ্রস্ত হচ্ছেনা। মহিলা ভাইস চেযারম্যানের দিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহুরা খাতুন বলেন, মামলার কারনে উপজেলায় যেতে পারছি না। আবার গোপনেও কোন ফাইলে স্বাক্ষর করছিনা। খুব দ্রুতই জামিন নিয়ে অফিস শুরু করব।

উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল আলীমের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার বর্তমান মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।