ঢাকা ০৫:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অবশেষে মারা গেল টাংগাইলের সখীপুরে জন্ম নেয়া অাজব মৎস্য কন্যা শিশুটি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:০৮:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২১ মে ২০১৮ ২২ বার পড়া হয়েছে

টাঙ্গাইলের সখীপুরে ‘মারমেইড সিনড্রোম’-এর শিকার একটি শিশু জন্ম নেওয়ার আড়াই ঘণ্টা পর মারা গেছে। রোববার রাতে ওই শিশুটি স্থানীয় লাইফ কেয়ার ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমে জন্মগ্রহণ করে। পরে ওই শিশুটি মারা যায়। শিশুটির মা উপজেলার বাঘেরবাড়ি গ্রামের কৃষক আনিছুর রহমানের স্ত্রী মর্জিনা আক্তার।

‘মারমেইড সিনড্রোম’ এ আক্রান্ত শিশুদের মূলত ‘মৎস্যকন্যা’ বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে। জন্ম নেওয়া ওই শিশুর দুটি পা জোড়া লাগানো। এমন শিশুদের কোনো প্রজনন অঙ্গও থাকে না। ফলে তাদের লিঙ্গ চিহ্নিত করা সম্ভব হয় না।

এ বিষয়ে লাইফ কেয়ার ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমের চিকিৎসক আবদুস সাত্তার চিকিৎসাবিজ্ঞানের উদ্বৃতি বলেন, এ শিশুটি মারমেইড সিনড্রোমে আক্রান্তের শিকার। এর আভিধানিক অর্থ হচ্ছে-মৎস্যকন্যা।

ওই শিশুর মাথা থেকে কোমর পর্যন্ত সাধারণ জন্ম নেয়ার শিশুর মতই থাকে। কিন্তু নিচের অংশ মাছের লেজের মত দেখায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

অবশেষে মারা গেল টাংগাইলের সখীপুরে জন্ম নেয়া অাজব মৎস্য কন্যা শিশুটি

আপডেট সময় : ১১:০৮:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২১ মে ২০১৮

টাঙ্গাইলের সখীপুরে ‘মারমেইড সিনড্রোম’-এর শিকার একটি শিশু জন্ম নেওয়ার আড়াই ঘণ্টা পর মারা গেছে। রোববার রাতে ওই শিশুটি স্থানীয় লাইফ কেয়ার ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমে জন্মগ্রহণ করে। পরে ওই শিশুটি মারা যায়। শিশুটির মা উপজেলার বাঘেরবাড়ি গ্রামের কৃষক আনিছুর রহমানের স্ত্রী মর্জিনা আক্তার।

‘মারমেইড সিনড্রোম’ এ আক্রান্ত শিশুদের মূলত ‘মৎস্যকন্যা’ বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে। জন্ম নেওয়া ওই শিশুর দুটি পা জোড়া লাগানো। এমন শিশুদের কোনো প্রজনন অঙ্গও থাকে না। ফলে তাদের লিঙ্গ চিহ্নিত করা সম্ভব হয় না।

এ বিষয়ে লাইফ কেয়ার ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমের চিকিৎসক আবদুস সাত্তার চিকিৎসাবিজ্ঞানের উদ্বৃতি বলেন, এ শিশুটি মারমেইড সিনড্রোমে আক্রান্তের শিকার। এর আভিধানিক অর্থ হচ্ছে-মৎস্যকন্যা।

ওই শিশুর মাথা থেকে কোমর পর্যন্ত সাধারণ জন্ম নেয়ার শিশুর মতই থাকে। কিন্তু নিচের অংশ মাছের লেজের মত দেখায়।