টাঙ্গাইলে লকডাউনের প্রথম দিনে মাঠে নেমেছে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ
সম্পাদনাঃ ০৫ এপ্রিল ২০২১ - ০৬:২৩:৫৯ পিএম

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক : টাঙ্গাইলে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকাতে লকডাউনের প্রথম দিনে জেলা প্রশাসক ড.মো: আতাউল গনি ও পুলিশ সুপার সঞ্জিত কমার রায়-শহরের পার্ক বাজার ,নিরালা মোড়, ক্যাপসুল মার্কেট ,ভিক্টোরিয়া মার্কেটসহ কয়েকটি মার্কেটে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেন ।


সোমবার ৫(এপ্রিল) সকালে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে ।
এ সময় জেলা প্রশাসক বলেন , বলেন, আমরা জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ, পৌরসভা এবং জেলার ১২টি উপজেলার সংশ্লিষ্ট সকলকে সাথে নিয়ে আমরা মানুষের জীবন রক্ষার জন্য চলাচল সীমিত করার কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। তারপরেও যারা স্বাস্থ্য বিধি মানেন না, মানার বিষয়ে মানুষকে নিরৎসাহিত করেন। তাদের বিরুদ্ধে আমাদের ভ্রাম্যমান আদালত চলমান রয়েছে। যেসব ব্যক্তি এই কোভিড ১৯ সম্পর্কে বলেন এটি আল্লাহর গজব, ভগবানের গজব, এগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে কিছু হবে না। এ সমস্ত লোকজন দেশের আইনের বিরুদ্ধে কথা বলে এবং জনসাধারণকে মৃত্যুর মুখে ফেলে দিচ্ছেন আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিবো ।


পুলিশ সুপার বলেন, সরকারের ঘোষিত সার্কুলার ও জেলা প্রশাসকের গণবিজ্ঞপ্তি এই দুইটাকে আমরা হাতে নিয়ে জনগণকে সচেতন করার জন্য প্রথমে ব্যবস্থা নিয়েছি। দ্বিতীয়ত, আমাদের গণপরিবহন ও দোকানপাট বন্ধ থাকবে। বিভিন্ন ধরনের জনগণের যে চলাচল কিছু নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। সেগুলোকে আমরা কার্যকরী করার জন্য আমরা জেলায় মোট ৫৪ টি চেকপোস্ট ও কিছু মোবাইল ডিউটি দিয়েছি। টাঙ্গাইল জেলা যাতে নিরাপদ থাকে আমরা যাতে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে বাধ্য করতে পারি,স্বাস্থ্যবিধির জন্য আমরা তাদের সচেতন করতে পারি তা কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি যেন , আগামী সপ্তাহে করোনা সংক্রমণ কমে আসে। আমরা যাতে একশ’ ভাগ বাস্তবায়ন করতে পারি এজন্য জেলা পুলিশের পক্ষে থেকে চেকপোস্ট, মোবাইল ডিউটি, সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত আছে।
পৌরসভার মেয়র এস এম সিরাজুল হক আলমগীর বলেন , জীবন এবং জীবিকার চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মহামারি করোনা ভাইরাস এদের প্রকোপ দিন দিন বেড়েই চলছে ও মারাত্বক আকার ধারন করেছে , এ অবস্থার প্রেক্ষাপট থেকে জনগনকে বাচানোর জন্য আমাদের জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সমন্বয়ক্রমে টাঙ্গাইল পৌরসভা যৌথ ভাবে জনসাধারনকে সচেতন করে তোলাই হচ্ছে আমাদের এক মাত্র উদ্দ্যেশ্য, ্আমরা চাই এ মারাত্বক ব্যাধি ও সংক্রামক ব্যাধি জনগনকে সুরক্ষিত করে আমরা আমাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চাই , সেজন্য জনগনকে ভয় না পেয়ে , সচেনতার মধ্যে দিয়ে , সচেনততা অবলম্বন স্বাস্ব্যবিধি অবলম্বন করে আমরা আমাদের দাত্বিত পালন করবো ইনশায়াল্লাহ , আমাদের টাঙ্গাইল পেীরসভার ১৮টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বৃন্দ প্রত্যকে প্রত্যেক অঞ্চলে এ স্বাস্ব্যবিধি মানার জন্য তারা সব সময় মাঠে রয়েছে , বাজার টি যাতে স্বাস্ব্যবিধি মোতাবেক পরিচালিত হয় সেজন্য আমরা যৌথ প্রচেষ্টার মধ্য দিয়ে বাস্তবায়িত করবো ।
এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সিভিল সার্জন ডা. আবুল ফজল মো: শাহবুদ্দিন খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) শফিকুল ইসলাম শফিক, পৌরসভার মেয়র সিরাজুল হক আলমগীর, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রানুয়ারা খাতুন, সদর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) খায়রুল ইসলাম ,সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন, কাগকারী পুলিশ ফাঁড়ির ইনর্চাজ মোশারফ হোসেন, টাঙ্গাইল চেম্বার অফ কর্মাস ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খান আহমেদ শুভ , পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মামুন জামান ( সজল) টাঙ্গাইল পার্ক বাজারের ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি মো: বারেক মিয়া এবং সাধারন সম্পাদক মো: জোয়াহের মিয়া প্রমূখ ।

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর
%d bloggers like this: