শিরোনাম
টাঙ্গাইলে যুবদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত       টাঙ্গাইলে ইরফান সেলিমের সহযোগী দিপু গ্রেপ্তার       বাসাইলে স্বামীর বর্বর যৌনসঙ্গমে কিশোরী মৃত্যু       টাঙ্গাইল প্রেস ক্লাবে আজম খানের পাওনা টাকা উদ্ধারের জন্য সংবাদ সম্মেলন       টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সংবাদ সম্মেলন       রায়হান হত্যা মামলার মুল আসামীকে শনাক্ত করা হয়েছে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী       টাঙ্গাইল এসপি পার্ক মাঠে হা-ডু-ডু খেলার উদ্বোধন       টাঙ্গাইলে পৌরসভায় নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) জাতীয় সড়ক দিবসে আলোচনা সভা       কালিহাতীতে ধর্ষণ হত্যাসহ নারীর প্রতি সহিংসতা নির্যাতন দ্রুত বিচারের প্রতিবাদ       কালিহাতী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আ. লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী শরীফ আহামেদ রাজু’র মতবিনিময় সভা      

টাঙ্গাইলে ১টি মোরগের দাম ২০ হাজার টাকা

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ
সম্পাদনাঃ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ - ০৭:০০:১১ এএম

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক : তিলকে তাল বানিয়ে টাঙ্গাইলের নাগরপুরে মাতাব্বরদের কারসাজিতে ১টি মোরগের দাম হয় ২০ হাজার টাকা। চাঞ্চল্য ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার দপ্তিয়ার ইউনিয়নের ভুগোলহাট গ্রামে ।

২১ (সেপ্টেম্বর) ২০২০ ইং তারিখে টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানা আমলী আদালতে মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার সূত্রে জানা যায়, গত ২৫ (আগষ্ট) ২০২০ইং তারিখ শনিবার আব্দুর রাজ্জাক বাবুর একটি মোরগ প্রতিবেশী আ. হালিমের বাড়ী যায়। মোরগটি ওই বাড়ীর কলেজ পড়–য়া ছাত্র মো. রাকিবের টেবিলে মল ত্যাগ করে। রাকিব ভূলবশত মোরগটির উপর ঢিল ছুড়ে। এতে মোরগ টি মরে যেতে পারে এই ভেবে জবাই করে মোরগের মালিক বাবুকে ডেকে দিয়ে দেয় এবং তাদের মধ্যে এ নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। আব্দুর রাজ্জাক বাবু মাতাব্বরদের কাছে মোরগ মারার বিচার চায়। পরে আব্দুর রাজ্জাক বাবু সপরিবারে মোরগটি রান্না করে খাই।

গত ২৮ (আগষ্ট) ২০২০ মঙ্গলবার এলাকার মাতাব্বররা আ. সাত্তারের বাড়ীতে আ. কুদ্দুস মিয়ার সভাপতিত্বে সালিশি বৈঠক বসায়। সালিশি বৈঠকে নিজেদের প্রভাব খাটিয়ে একটি মোরগের দাম ধার্য্য করা হয় ২০ হাজার টাকা ও সেই সাথে কলেজ পড়–য়া ছাত্র রাবিক কে দেওয়া হয় শারীরিক শাস্তি । ওই সালিশি বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আ. হাই, ফজলু শেখ, মো. কফিল উদ্দিন ও জয়েদ আলী । জুড়ি বোর্ডের সদস্য ফজলু শেখ, আ. সামাদ, সামিম, কোরবান আলী ও মোতালেবের সিদ্ধান্তে লুঘ পাপে এই গুরুদন্ড দেওয়া হয়।ওই বৈঠকে সকলের সমানে রাকিবের পিতা আ. হালিম নিরুপায় হয়ে নগদ ৫০০০ হাজার টাকা দিয়ে মাতাব্বরদের কাছে ক্ষমা চান।

কিন্তু প্রভাবশালী মাতাব্বররা ক্ষমা না করে বাকী টাকার জন্য তারিখ দেন। মাতাব্বদের চাপের কারনে কোন উপায় না থাকায় গত ৪ (সেপ্টেম্বর) ২০২০ ইং ধারদেনা করে আরো ৩ হাজার টাকা জয়েদ আলী ও কুদ্দুসের হাত দিয়ে পূর্নরায় বয়স্ক আ. হালিম তাদের কাছে ক্ষমা চান। মোট ৮ হাজার টাকা পেয়েও তুষ্ট হন না মাতাব্বররা। বাকী ১২ হাজার টাকার জন্য হালিমের পরিবার কে চাপ প্রয়োগ এবং ভয়ভীতি দেখায়।

কোন উপায়ন্তর না পেয়ে আ. হালিম টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানা আমলী আদালতে গত ২১ (সেপ্টেম্বর) ২০২০ইং তারিখে একটি মামলা দায়ের করে।মোরগ মালিক আ.রাজ্জাক বাবু বলেন, দুই দফায় জরিমানার ৮ হাজার টাকা আমি পেয়েছি। বাকী ১২ হাজার টাকা জন্য মাতাব্বর কিনবা হালিমের পরিবার কে কোন প্রকার চাপ প্রয়োগ করিনি।

ভুক্তভোগী পরিবার আ. হালিম জানান, আমার ছেলে ভুল করে প্রতিবেশী আ. রাজ্জাকের একটি মোরগ কে আঘাত করে। আমি মোরগ মালিক কে ডেকে এনে তার মোরগটি বুঝিয়ে দেই।পরে মোরগ মালিক বাবু আমার ছেলের বিরুদ্ধে মাতাব্বরদের কাছে বিচার চান। বিচারে আমার ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও ছেলেকে শারীরিক শাস্তি দেয়। দুই দফায় ৮ হাজার টাকা দিয়ে ক্ষমা চেয়েও রেহাই পাইনি বাকী ১২ হাজার টাকার জন্য আমাকে বিভিন্ন ভাবে চাপ ভয়ভীতি প্রয়োগ করে আসছে। বাধ্য হয়ে আমি টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানা আমলী আদালতে গত ২১ (সেপ্টেম্বর) ২০২০ইং তারিখে একটি মামলা দায়ের করি।

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর
%d bloggers like this: