শিরোনাম
বাংড়া ইউনিয়ন ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে জনপ্রিয়তার শীর্ষে উজ্জল হোসেন Headline Bullet       দেলদুয়ারে বলাৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষককে জুতাপেটা Headline Bullet       টাঙ্গাইল জেলা মহিলা দলের সভাপতি নিলুফার ,সম্পাদক রকসি Headline Bullet       টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা গ্রন্থের প্রকাশনা ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত Headline Bullet       বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে টুকুর কটুক্তির প্রতিবাদে ভূঞাপুরে আ.লীগের বিক্ষোভ  Headline Bullet       মির্জাপুর পৌরসভাকে আধুনিক পৌরসভায় রুপান্তর করতে চাই—মেয়র সালমা আক্তার শিমুল Headline Bullet       কবি বাবুলের হাতে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক তুলে দিলেন – এমপি শুভ Headline Bullet       বাসাইলে রাস্তার কাজ না করেই টাকা আত্মসাতের অভিযোগ Headline Bullet       ‘হাতুড়ি পেটা করে ছেলেকে হত্যা, মানববন্ধনে খুনিদের ফাঁসি চান মা’ Headline Bullet       টাঙ্গাইলে ট্রাকের পেছনে ধাক্কা লেগে বাসের হেলপার নিহত Headline Bullet      

টাঙ্গাইলে মাদকাসক্ত ছেলেকে ত্যাজ্য পুত্র করলেন মুক্তিযোদ্ধা

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ
সম্পাদনাঃ ৩০ অক্টোবর ২০১৯ - ০৭:৫০:২৫ পিএম

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক : টাঙ্গাইলে মাদকাসক্ত ছেলেকে ত্যাজপুত্র ঘোষণা করলেন টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার শামসুল হক নামের এক বীর মুক্তিযোদ্ধা। মঙ্গলবার দুপুরে নোটারী পাবলিক টাঙ্গাইল আদালতে হাজির হয়ে তার ছোট ছেলে আজাহারুল হক জয়কে (২৩) এফিডেভিটের মাধ্যমে ত্যাজ্য পুত্র ঘোষণা করেন। পরে তিনি স্থানীয় পত্রিকায় একটি বিজ্ঞপ্তি দেন।
বীরমুক্তিযোদ্ধা শামসুল হক জানান, ৮ম শ্রেণী পড়া অবস্থায় তার ছেলে আজাহারুল বন্ধুদের সাথে আড্ডায় পড়ে ইয়াবা ট্যাবলেট সেবন করা শুরু করে। মাদকাসক্ত অবস্থায় ২০১৪ সালে এসএসসি পাশ করে। ওই বছরই বগুড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ভর্তি হয়। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং এ লেখা পড়া শুরু করলেও কোর্স শেষ করতে পারেনি। মাদক সেবনের জন্য প্রতিনিয়ত বাসায় টাকার জন্য চাপ দিতো। টাকা না দিলে বাসার ফার্ণিচারভাঙাসহ পরিবারের সকল সদস্যদের সাথে খারাপ আচরণও করতো। একাধিকবার মাদক নিরাময় কেন্দ্রে দিয়েও তাকে মাদক থেকে দূরে সরানো যায়নি। মাঝে মাঝে ৪/৫ দিন করে নিরুদ্দেশ থাকতো। এখনও সে নিরুদ্দেশ হয়ে আছে।
আজাহারুল হক আমার অবাধ্য ছেলে। সে সমাজে এমন সব অপকর্ম করে বেড়ায় যার জন্য আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হতে হয়। আমার কোন কথা বার্তা শুনে না। আমার কোন আদেশও মানে না। আমি তাকে বুঝাতে গেলে আমার ও আমার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে খারাপ আচরণ করে। তাই আমার পরিবার আত্মীয় স্বজন আজাহারুল হক জয়ের কার্যকলাপের জন্য অনুতপ্ত হয়ে শুভাকাঙ্খাদীর পরামর্শক্রমে আমার ছেলেকে ত্যাজ্য পুত্র ঘোষণা করলাম। সে আমার জীবদ্ধশায় আমার সকল প্রকার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি দাবি করতে পারবে না। এখন থেকে আজাহারুল হক জয় আমার ছেলে না। তার সকল প্রকার অপকর্মের জন্য আমি ও আমার পরিবার দায়ি নয় বলে শামসুল হক নোটারী পাবলিকে উল্লেখ করেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল জজ কোর্টের পিসি এডভোকেট এস আকবর খান বলেন, ত্যাজ্যপুত্রের বিষয়টি আইনগত কোন ভিত্তি নেই। সে সমাজকে জানালো তার পুত্রকে সর্ম্পক ছিন্ন করলো। ত্যাজ্যপুত্র করলেই আইনগতভাবে ত্যাজ্যপুত্র হয়ে যাবে না। যাকে ত্যাজ্য করা হয়েছে সে সম্পত্তি এবং ওয়ারিস থেকে বঞ্চিত হবে না।

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর
%d bloggers like this: