শিরোনাম
বাংড়া ইউনিয়ন ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে জনপ্রিয়তার শীর্ষে উজ্জল হোসেন Headline Bullet       দেলদুয়ারে বলাৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষককে জুতাপেটা Headline Bullet       টাঙ্গাইল জেলা মহিলা দলের সভাপতি নিলুফার ,সম্পাদক রকসি Headline Bullet       টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা গ্রন্থের প্রকাশনা ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত Headline Bullet       বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে টুকুর কটুক্তির প্রতিবাদে ভূঞাপুরে আ.লীগের বিক্ষোভ  Headline Bullet       মির্জাপুর পৌরসভাকে আধুনিক পৌরসভায় রুপান্তর করতে চাই—মেয়র সালমা আক্তার শিমুল Headline Bullet       কবি বাবুলের হাতে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক তুলে দিলেন – এমপি শুভ Headline Bullet       বাসাইলে রাস্তার কাজ না করেই টাকা আত্মসাতের অভিযোগ Headline Bullet       ‘হাতুড়ি পেটা করে ছেলেকে হত্যা, মানববন্ধনে খুনিদের ফাঁসি চান মা’ Headline Bullet       টাঙ্গাইলে ট্রাকের পেছনে ধাক্কা লেগে বাসের হেলপার নিহত Headline Bullet      

ছেলেধরা সন্দেহে ভ্যানচালককে গণপিটুনি, গ্রেফতার ৬

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ
সম্পাদনাঃ ২৩ জুলাই ২০১৯ - ০৫:৪৬:১১ পিএম

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ ডেস্ক : টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে ছেলে ধরা সন্দেহে মিনু মিয়া(৩০) নামে এক ভ্যানচালককে গণপিটুনির ঘটনায় ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার(২২ জুলাই) দিনগত রাতভর অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন, কালিহাতী উপজেলার নাগা চৌধুরীবাড়ী গ্রামের মৃত তরিকুল আলম সিদ্দিকীর ছেলে মাইনুল হক হিটু(৩৭), নাগা গ্রামের সন্তোষ চন্দ্র মালুর ছেলে প্রভাত চন্দ্র মালু(১৯), একই গ্রামের আনোয়ার হোসেন খানের ছেলে শিশির আহম্মেদ খান(৩২), মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে মিজানুর রহমান তালুকদার(৪৭), আনোয়ার হোসেন খানের ছেলে ওমর (৩২) এবং পালিমা গ্রামের ফজলু মিয়ার ছেলে আলামিন ইসলাম(১৯)।

মঙ্গলবার(২৩ জুলাই) দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) শফিকুল ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত ২১ জুলাই(রোববার) ছেলে ধরা সন্দেহে কালিহাতী উপজেলায় সয়া হাটে ভ্যানচালক মিনু মিয়াকে গণপিটুনি দেয় স্থানীয়রা। কিন্তু তিনি ছেলে ধরা ছিলেন না। মূলত তিনি হাটে মাছ ধরার জাল কিনতে গিয়েছিলেন। এ ঘটনায় আহতের ভাই রাজিব হোসেন সোমবার রাতে বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে রাতেই অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এছাড়া জেলায় আরো দুই জনকে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনি দেয়া হয়। কিন্তু তারাও ছেলে ধরা ছিল না। যদি কাউকে সন্দেহ হয় তাহলে পুলিশকে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। পুলিশ তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবে।Facebook

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর
%d bloggers like this: