শিরোনাম

টাঙ্গাইলের মধুপুরে লিজা ধর্ষণ ও হত্যায় ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ

সোনালী বাংলাদেশ নিউজ
সম্পাদনাঃ ০৫ জুন ২০১৮ - ০১:৫৬:৫২ পিএম

টাঙ্গাইলের মধুপুরে গাছাবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনীর মেধাবী ছাত্রী লিজা আকতার (১১) দুর্বৃত্তদের হাতে ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগের ৯ দিন পর সোমবার সকাল ১১ টায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে ঘাতকদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় লিজার বাবা মিজানুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, লিজা জীবন কি তা বুঝে উঠার আগেই ঘাতকরা নির্মমভাবে ধর্ষণ ও হত্যা করেছে তাকে। এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচারও দাবি করেন তিনি।

লিজার বাবা তার বক্তব্যে আরো বলেন, এ ঘটনার এমন দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই- যা দেখে আর কেউ যেন এ রকম নির্মম ঘটনা করতে সাহস না পায়। এ জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী ও প্রশাসনের নিকট আকুতি জানান।

গাছাবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলী আকবরের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মধুপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এএইচএম রেজাউল করিম, অরণখোলা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম, সহকারী শিক্ষা অফিসার মোশারফ হোসেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন, আমবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু হানিফ, গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সভাপতি রানা শর্মা, নিহত লিজার বাবা মিজানুর রহমান, কাকরাইদ বিএডিসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জয়নাল আবেদীন, শিশু ফোরামের সভাপতি সোহেল রানা ও আমির হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করে বলেন, লিজার মতো ফুল ফোঁটার আগেই এ রকম কলি যেন আর ঝরে না পড়ে। এ জন্য সবাইকে সচেতন থাকার আহবান জানান। সভায় বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ মে শুক্রবার রাতে উপজেলার অরণখোলা ইউনিয়নের গাছাবাড়ী গ্রামের উত্তর পাড়ায় নিজ বাড়ীর পশ্চিম পাশের বাঁশঝাড় থেকে কলাপাতায় মোড়ানো স্কুলছাত্রী লিজার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে স্থানীয় আমজাদ হোসেন, রানা ও রাসেল নামে তিন জনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। নিহত পরিবারের দাবি ঘাতকরা লিজাকে ধর্ষণের পর হত্যা করেছে। লিজার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ও স্পর্শকাতর জায়গায় নির্যাতন এবং আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছিল।

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর
%d bloggers like this: